21 January- 2021 ।। ৭ই মাঘ, ১৪২৭ বঙ্গাব্দ

পিরোজপুরে দেড় কোটি টাকার ভারতীয় পণ্য উদ্ধার : আটক ৪

নিজস্ব প্রতিবেদক :

পিরোজপুরের হুলারহাট বন্দর এলাকা থেকে ভারতীয় পণ্য বোঝাই একটি ট্রলার আটক করেছে জেলা ডিবি পুলিশ। গোপান সংবাদের ভিত্তিতে বুধবার (২৫ ডিসেম্বর) ভোর ৪টায় পিরোজপুরের ডিবি পুলিশ এসব পণ্য আটক করে।

এসময় ট্রলার থেকে আনুমানিক দেড় কোটি টাকার ৬০ বস্তা ভারতীয় শাড়ী, থ্রি-পিস, শীতের চাদর উদ্ধারসহ চারজন চোরা কারবারিকে আটক করা হয়। আটককৃতরা হলেন বরগুনার বড় পাথরঘাটা গ্রামের নাজেম গোলদারের ছেলে জামাল গোলদার (৫০), বরিশালের চরমোনাই গ্রামের ইন্তেজ আলী হাওলাদারের ছেলে সেলিম (৫৬) ও কামাল খলিফার ছেলে সুরুজ (২৫) এবং ভোলার লালমোহন থানার পরাজগঞ্জ গ্রামের খোকন মিস্ত্রির ছেলে জুয়েল (২৫)।

পুলিশ সূত্রে জানা যায়, একটি স্টিলবডি ট্রলার দ্রুতবেগে চালিয়ে পিরোজপুরের হুলারহাট খালের ভিতরে ঢুকে পড়ে। এরপর বাজার ব্রিজের কাছে একটি শাখা খালের মধ্যে ট্রলার থেকে নেমে আসামীরা পালিয়ে যাওয়ার চেষ্টা করলে পুলিশ তাদের আটক করে। এসময় স্থানীয় লোকজনের উপস্থিতিতে উল্লেখিত পণ্য উদ্ধার করা হয়।

পিরোজপুরের পুলিশ সুপার হায়াতুল ইসলাম খান জানান, উদ্ধারকৃত পণ্যের আনুমানিক মূল্য দেড় কোটি টাকা। এসময় তিনি আরও বলেন, পিরোজপুরসহ এ অঞ্চলের নদী পথে ভারতীয় পণ্যের চোরাচালান বৃদ্ধির খবরে পুলিশ অভিযান চালিয়ে পণ্য উদ্ধার ও জড়িতদের গ্রেফতার করেছে। ধারণা করা হচ্ছে এসব পণ্য নৌ-যান থেকে নামিয়ে সড়ক পথে ঢাকা নেয়া হতো।

উল্লেখ্য, পিরোজপুরের পাড়েরহাট, মঠবাড়িয়ার তুষখালী ও বরগুনার পাথরঘাটাসহ দক্ষিণাঞ্চলের বিভিন্ন স্থানের কতিপয় চোরাচালানী দীর্ঘদিন থেকে সুন্দরবন ও বঙ্গোপসাগর হয়ে ভারতীয় নানা পণ্য ঢাকার বাজারে পাঁচারের কাজে লিপ্ত রয়েছে। এ সময়কালে পাড়েরহাট, তুষখালী, ভান্ডারিয়া ও পাথরঘাটায় ভারতীয় কাপড়সহ কোটি কোটি টাকার বিভিন্ন পণ্য আটক হয়েছে। সাথে গডফাদারসহ চোরাচালানীদের একাধিক চক্র গ্রেফতার হয়। কিন্তু তাদের বিরুদ্ধে মামলা হলেও জামিনে ছাড়া পেয়ে এরা আবারও চোরাচালান শুরু করে।



এ বিভাগের আরও সংবাদ


সংবাদ শিরোনামঃ